বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৫:১১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
সবদিক বঞ্চিত সেন্ট মার্টিন দ্বীপের বাসিন্দারা হাতির অভয়ারণ্য ধ্বংস, ১৩ হাতির মৃত্যু কেন্দ্রে প্রথমবার এড.সিরাজুল মোস্তফা, জেলার দায়িত্বে এড.ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী এড.সিরাজুল মোস্তফা আ.লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হলেন খুরুশকুলে জলবায়ু উদ্বাস্তু পরিবারের জন্য আরও ১১৯টি ভবন নির্মাণের উদ্যোগ পেকুয়ায় ব্যক্তি উদ্যোগে কালভার্ট ও সড়ক সংস্কার জেলা ছাত্রলীগকে স্বাগত জানিয়ে কুতুবদিয়া ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল সবাই মিলে কাজ করলে শুঁটকি পল্লীতে শিশুশ্রম নিরসন করা অসম্ভব হবে না আইডিয়াল স্পোটিংসকে ২-১ গোলে হারিয়ে ব্রাদাস ফুটবল একাদশ চ্যাম্পিয়ন সোনাইছড়িতে আন্ত:ধর্মীয় সংলাপ অনুষ্ঠিত

গ্রাম আদালত সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে কর্মশালা

সিসিএন
  • আপডেট সময় রবিবার, ৫ মে, ২০১৯
  • ২০৮ বার পঠিত

সিসিএন রিপোর্ট।

গ্রাম আদালতকে বিচার কার্যকর, স্থানীয় জনগণের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানো এবং তাদের সেবা নিতে উৎসাহ দিতে প্রকল্প ভুক্ত ইউনিয়ন পরিষদকে কাজ করার জন্য ও যেকোন বিষয়ে সহযোগিতা কিভাবে বাড়ানো যায় তা নিয়ে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

সোমবার বিকেল ৪ টার দিকে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ‘গ্রাম আদালত সম্পর্কে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে গণমাধ্যামের ভুমিকা’ শীর্ষক মতবিনিময়’ সভা স্থানীয় সরকারের (ভারপ্রাপ্ত) উপ-পরিচালক মো. আশরাফুল আফসারের সভাপতিত্বে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়ে ছোট ছোট যে অপরাধ হয় তা সমাধান করেন গ্রাম আদালত।

এ আদালতের মাধ্যমেই অনেকই ন্যায় বিচার পাচ্ছে। বিচার মিমাংসার ক্ষেত্রে গ্রাম পর্যায়ে সমাধান আসলে সরকারেও সফলতা আসবেন। গ্রাম পর্যায়ের শালিসকে আইনি কাঠামোতে নিয়ে আশাই গ্রাম আদালতের কাজ। এ সময় গ্রাম আদালেতের বিভিন্ন দিক নিয়ে বক্তব্য রাখেন, কমিউনিকেশন এন্ড আউটরিচ স্পেশালিস্ট অর্পণা ঘোষ।

কর্মশালায় ইউএনডিপির কক্সবাজার ডিস্ট্রিক ফ্যাসিলিটেটর আখ্যাই মং মারমা বলেন, বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ প্রকল্প (২য় পর্যায়) জেলার বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ে জাতিসংঘের উন্নয়ন সংস্থা (ইউএনডিপি) ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত ‘বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্প-এর আর্থিকও কারিগরি সহায়তায় সহযোগী সংস্থা বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসে ট্রাস্ট এর কর্মশালা আয়োজনে বিশেষ সহযোগিতা প্রদান করে।

বর্তমানে কক্সবাজার জেলার মোট ৬ উপজেলার ৩৬টি ইউনিয়নে এ প্রকল্পটি কাজ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এই প্রকল্পের সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্য হলো স্থানীয়ভাবে সহজে,স্বল্প সময়ে, স্বল্প ব্যয়ে এবং স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় বিরোধ নিষ্পত্তিতে গ্রাম আদালতের মূখ্য অংশীজনদের (যারা বিচারিক কাজে যুক্ত থাকবেন বিশেষভাবে ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যবৃন্দ) সক্ষম করে তোলা এবং অন্যায়ের প্রতিকার লাভের জন্য তৃণমূলের দরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠী, বিশেষত নারীদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়ক হিসেবে ভূমিকা রাখবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019 | কক্সবাজার ক্রাইম নিউজ
Theme Customized By Shah Mohammad Robel