শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
যাত্রীবেশে উঠে চকরিয়ায় মহাসড়কে চলন্ত বাসে ডাকাতি, দুইজন গুলিবিদ্ধসহ আহত ১৫ খুলে যাবে উপকূলীয় চার উপজেলার সম্ভাবনার দূয়ার মানুষকে অবহেলা-তুচ্ছতাচ্ছিল্য করবেন না: প্রশাসনকে প্রধানমন্ত্রী চকরিয়ায় অবৈধ বসতি গুঁড়িয়ে দিয়ে এক একর সংরক্ষিত বনভূমি উদ্ধার স্বাস্থ্যবিধি না মানলে প্রয়োজনে কারাদণ্ড দেয়া হবে: জেলা প্রশাসক লকডাউন আর না, সচেতন হোন: সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দিন কক্সবাজারে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট ফিল্ড হাসপাতালের উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রণোদনা নিয়ে জেলার ব্যাংক কর্মকর্তাদের সাথে সংলাপ যানজট নিরসনের পাশাপাশি মডেল সড়ক হবে কক্সবাজারে শিশু ধর্ষনের দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

চকরিয়ায় রাতের আধারে জায়গা দখলের চেষ্টা: প্রাণনাশের হুমকি!

সিসিএন
  • আপডেট সময় রবিবার, ৫ মে, ২০১৯
  • ২০৩ বার পঠিত

সিসিএন রিপোর্ট।

চকরিয়ায় কোনাখালী ইউনিয়ের আ লিক মহাসড়কস্থ বটতলী এলাকায় বাহিনী নিয়ে দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় পৈত্রিক জায়গা জবরদখলের পায়তারা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। এমনকি ভুক্তভোগী মালিককে প্রতিপক্ষের লোকজন প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে। এ নিয়ে ভুক্তভোগী মালিক মেহেদী হাসান বাদী হয়ে ৬ জনের নামে মঙ্গলবার চকরিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সাদেরঘোনা এলাকার মৃত বশরত আলীর ছেলে মেহেদী হাসান তার পৈত্রিক ওয়ারিশী ও খরিদা জায়গায় দীর্ঘকাল ধরে ভোগদখল করে দোকানঘর নির্মাণ করে। গত ২৮ এপ্রিল রাত সাড়ে আটটার দিকে একই ইউনিয়নের উপকূলীয় আ লিক মহাসড়ক সংলগ্ন বেতুয়া মৌজার বিএস ১৮৩ ও ৩৫৩ নং খতিয়ানের বিএস ৬১১দাগের ৩০শতক জমিতে নির্মিতি দোকান ঘর জবর-দখলে পায়তারা মেতে উঠেছে স্থানীয় একটি বাহিনী। একই এলাকার মহিউদ্দিন, জসিম উদ্দিন, নাছির উদ্দিন, আবুল হোসেন ও এনামের নেতৃত্বে পূর্বপরিকল্পিত ভাবে একটিদল হামলা চালিয়ে দোকান ঘর জবর-দখলে নিতে চেষ্টা চালায়। এ সময় বাঁধা দিতে গেলে ভুক্তভোগী জায়গার মালিককে উল্টো প্রাণনাশের হুমকি দেন।

ভুক্তভোগী জায়গার মালিক মেহেদী হাসান বলেন,আমার পৈত্রিক ওয়ারিশী খরিদাকৃত ৩০শতক জায়গা দীর্ঘকাল ধরে ভোগদখল করে আসছি। বর্তমানে ওই জায়গায় সোমবার রাতেও অভিযুক্তরা দোকান ঘর জবর-দখলে চেষ্টা চালানো হয়। এতে বাঁধা দিলে সে প্রাণনাশের হুমকিও প্রদান। এনিয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানান ভুক্তভোগী ইদ্রিছ মিয়া।
চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম আতিক উল্লাহ বলেন, ঘটনার বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ দেয়া হয়েছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিষয়টি তদন্তের জন্য থানার একজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলে জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019 | কক্সবাজার ক্রাইম নিউজ
Theme Customized By Shah Mohammad Robel