মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম

আলোচিত জসিম হত্যা কান্ডের ৭ দিন গত: অভিযোগের তীর গুরু শহীদের দিকে!

সিসিএন
  • আপডেট সময় সোমবার, ৫ আগস্ট, ২০১৯
  • ২৪১ বার পঠিত

সিসিএন রিপোর্টঃঃ-  

কক্সবাজারের উখিয়া মনখালী এলাকার জসিম উদ্দীন নিহতের ঘটনায় এক সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি আইনশৃংখলা বাহিনী। এই হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের বড় ভাই শাহাব উদ্দীন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে উখিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার মামলা (নং-৫৭)। নিহতের পরিবার ও পুলিশের পক্ষ থেকে তদন্তের স্বার্থে হত্যাকান্ড নিয়ে আপাতত মুখ খুলতে রাজী নয়। তবে পারিবারিক অন্তকোন্দলের সূত্রধরে চিহ্নিত ব্যক্তির ইশারায় এই খুনের ঘটনা সংঘটিত হতে পারে বলে ধারনা করছেন স্থানীয়রা।

অপরদিকে উখিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনসুর আহমদ জানান, কয়েকটি সূত্র ধরে তদন্ত টিম কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তদন্তের অগ্রগতির স্বার্থে আপাতত কোন মন্তব্য করা যাচ্ছেনা। অতি শিগগিরই খুনিদের আইনের আওতায় আনা হবে।

এই হত্যাকান্ড নিয়ে পুলিশ এবং নিহতের পরিবারের কাছে কোন মন্তব্য পাওয়া না গেলেও স্থানীয় এলাকাবাসীদের মাঝে ভিন্ন ভিন্ন গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে। স্থানীয়দের মতে, নিহত জসিম একই এলাকার শাহাব উদ্দীন চেয়ারম্যানের ছেলে শহীদুল্লাহর সম্পর্কে শালক হয়। বিগত সময়ে জসীম ও শহীদুল্লার মাঝে গুরু শিষ্য সম্পর্ক ছিলো। সেই সূত্রে জসিমের বাড়িতে নিত্য যাওয়া আসার সুযোগে জসিমের সাবেক স্ত্রী রোকসানার সাথে শহীদুলাহ পরকিয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। এটি এক পর্যায়ে পরকিয়া থেকে শাররীক সম্পর্ক পর্যন্ত গড়ায়। একটি জাতীয় দৈনিকের বরাতে জানাগেছে, বিষয়টি কাউকে না জানাতে জসিম কে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে হত্যার হুমকি দেয়। উক্ত ঘটনায় ২০১৪ সালে উখিয়া থানায় জিডিও রয়েছে, যার (জিডি নাম্বার- ৮৯৪)। বিষয়টি জসিমের নিয়ন্ত্রনের বাহিরে চলে গেলে এক পর্যায়ে জসিম বাধ্য হয়ে তার চাচাতো বোন শহীদুল্লার স্ত্রী শেলী’র কাছে ফাঁস করে দেয়। শেলী বিষয়টি মেনে নিতে না পেরে স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। পরবর্তীতে জসিমের স্ত্রী রোকসানাকে শহীদুল্লাহ উঠিয়ে নিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে বিয়ে করে ঘরে তুলে নেয়। এই পারিবারিক কোন্দলের রেশ ধরে শহীদুল্লাহ ও জসিমের মাঝে সম্পর্কের ফাটল ধরে এক পর্যায়ে জসিম মানুষিক ভারসাম্য হীন হয়ে পড়ে। সেই থেকে উভয়ের মাঝে একটা চরম বিরোধ চলে আসছিলো। তাই জসিম হত্যাকান্ডের পেছনে এই চিহ্নিত ব্যক্তির যোগসূত্র আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা প্র‍য়োজন বলে এলাকাবাসীর মধ্যে কানাঘুষা চলছে।

এদিকে শহীদুল্লাহর ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন বিতর্কিত কর্মকান্ড ও প্রভাব বিস্তার করে তিনি এলাকায় এক আতংকিত মূর্তি হিসেবে নিজের অবস্থান সৃষ্টি করেছেন। তার এক সহোদর প্রশাসনিক কর্মকর্তা হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খোলার সাহস রাখেনা। তার সাথে এক ফোনালাপে নিজের প্রভাব ও ব্যক্তিগত ইমেজ প্র‍য়োগ করে দুই নিকট আত্মীয়কে জনপ্রতিনিধি বানিয়েছেন বলেও স্পষ্ট হওয়া যায়। পরবর্তিতে তারা রাষ্ট্রীয় সুরক্ষা বিভাগের কালো তালিকা ভূক্ত হওয়ার কারনে তাদের সাথে সম্পর্কের অবনতি চলছে বলেও দাবী করেন তিনি। ধারনা করা হচ্ছে নিজেকে আড়াল করতে এটি তার কৌশল হতে পারে। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে উখিয়া থানায় হত্যা মামলা নং:-১৩(১২)০৩ জি আর:- ১৭১/০৩, টেকনাফ থানা মাদক মামলা নং- জি আর -১১১/১৭, কক্সবাজার সদর থানা দাঙ্গা হাঙ্গামা মামলা নং – ৫৮ জি আর – ৮৬৭/১৩, টেকনাফ থানা শ্লীলতাহানী মামলা নং – ২৬ জি আর ৯৫/১৭, সি আর চাঁদাবাজি মামলা নং – ৩৯৮/১৬ সহ সর্বমোট ৫টি মামলার রেকর্ড রয়েছে। প্রত্যেকটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এছাড়াও আলোচিত জমির মেম্বার হত্যা মামলায় দীর্ঘ হাজতবাস শেষে সাজাপ্রাপ্ত হয়ে মামলাটি উচ্চ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। অপরদিকে মাদক সংশ্লিষ্ট মামলা থাকার পরেও পুলিশের নাকের ডগায় প্রকাশ্যে চলাফেরা করছে। এনিয়েও সচেতন মহলের মাঝে এক নিকট জন প্রশাসনিক কর্তাব্যক্তির ক্ষমতা অপব্যবহার করছেন বলে বিভিন্ন প্রশ্ন রয়েছে।

এদিকে, মাদক মামলার বিষয়টি খতিয়ে দেখে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ মডেল থানার ওসি তদন্ত এস এম দোহা।

এইসব বিতর্কিত কর্মকান্ড ও পাব্লিক সেন্টিমেন্ট বিষয়ে শহীদুল্লাহর কাছে জানতে চাওয়া হলে, দীর্ঘ ফোনালাপের শেষের দিকে জসিমের সাবেক স্ত্রীর সাথে পরকিয়ার ব্যাপারটি সত্যি কিনা প্রশ্নের সাথে সাথে, কিছু বুঝে উঠার আগেই অতর্কিত ভাবে তিনি আগবাড়িয়ে জসিমের খুনের সাথে জড়িত নন বলে দাবী করেন। বিষটি (ঠাকুর ঘরে কে? মা আমি কলা খাইনি) এমন প্রবাদের মতো। তাহলে কারা জড়িত এমন প্রশ্নের জবাবে, নিজেকে ক্লিন ইমেজের লোক দাবী করে, তার প্রতিপক্ষ লোক তাকে ঘায়েল করতে অতীতের কিছু বিষয় পুজি করে হত্যাকান্ডটি ঘটিয়ে তাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে বলে দাবী করেন তিনি।

সুত্রঃ- ক্রাইম ওয়াচ 

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019-2020 | কক্সবাজার ক্রাইম নিউজ
Theme Customized By Shah Mohammad Robel