বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০১:১৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
বুধবার থেকে গণপরিবহনে ভাড়া ৬০ শতাংশ কার্যকর মহেশখালীতে ৬লাখ ২২ হাজার ইয়াবা উদ্ধার উখিয়া-টেকনাফ থেকে ৬ষ্ঠ দফায় ভাসানচরের পথে ২৪৯৫ জন রোহিঙ্গা পেকুয়ায় পানিতে ডুবে রোজাদার যুবকের মৃত্যু চকরিয়া পৌরসভা নির্বাচন: মেয়র প্রার্থী জিয়াবুলের পথসভায় মানুষের ঢল রামুর কচ্ছপিয়ায় যুবলীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হেফাজতের হরতাল ঠেকাতে নেতাকর্মীদের নিয়ে দিনভর মাঠে এমপি জাফর আলম উগ্র মৌলবাদীদের রাস্তায় নামিয়ে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা থামানো যাবে না: মেয়র মুজিব রোহিঙ্গাদের ভোটার করায় কক্সবাজারে ৩ কাউন্সিলর গ্রেফতার চকরিয়া পৌর ভোট: মেয়র প্রার্থী জিয়াবুলের ‘জনতার ইশতেহার’ কমসূচি শহরজুড়ে প্রশংসা

বৃদ্ধ পাহারাদারের ৭ মাসের বেতন উদ্ধার করে দিলেন ‘মানবিক’ ওসি হাবিব

সিসিএন
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৬ জুন, ২০২০
  • ৯৭ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

দীর্ঘ পাঁচবছর ধরে কক্সবাজারের চকরিয়ায় এক প্রবাসীর বহুতল ভবনে পাহারাদার হিসেবে কর্মরত ছিলেন সত্তরোর্ধ আবু শামা। প্রতিমাসে ৬ হাজার টাকা বেতনে তিনি এই কাজ করে আসলেও নিয়মিত পাওনা পরিশোধ করছিলেন না বাড়ির মালিক প্রবাসী। এরইমধ্যে চলে আসা করোনা পরিস্থিতির কারণে বাড়ির মালিক প্রবাসী ওই বৃদ্ধকে বিভিন্ন অজুহাতে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেন। কিন্তু সাতমাসের বকেয়া থাকা বেতনের ৪২ হাজার টাকা পরিশোধ করেননি ওই প্রবাসী। উল্টো মিথ্যা অপবাদ এবং ধমক দিয়ে চলে যেতে বাধ্য করেন বৃদ্ধকে।

এই অবস্থায় পরিবার সদস্যদের নিয়ে অর্থ সংকটে পড়ে যান করোনার এই সময়ে। বুধবার রাতে বিষয়টি নজরে আসে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুর রহমানের। তিনি তাৎক্ষণিক থানার একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে (এসআই আবদুল্লাহ আল মাসুদ)
পাঠিয়ে পৌরসভার সবুজবাগস্থ প্রবাসী আনোয়ারুল ইসলাম সিকদারকে থানায় ডেকে নিয়ে বিষয়টি জানতে চান।

এ সময় ওসির রুমে বসা ছিলেন পাহারাদার বৃদ্ধ আবু শামা। তখন প্রবাসী স্বীকার করেন ওই বৃদ্ধের সাতমাসের বেতন বাবদ তার কাছে ৪২ হাজার টাকা পাওনা রয়েছেন। সেই টাকা কিছুক্ষণের মধ্যে ওসির কাছে হস্তান্তর করেন প্রবাসী আনোয়ারুল ইসলাম সিকদার। পরে কমিউনিটি পুলিশের নেতা হাসানুল ইসলাম আদরসহ আরো কয়েকজনের উপস্থিতিতে সেই টাকা বৃদ্ধ আবু শামার হাতে তুলে দেন ওসি।

এ প্রসঙ্গে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুর রহমান বলেন, ‘বাবার বয়সী এমন একজন বৃদ্ধের সাথে প্রবাসী যে আচরণ করেছে তা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। তাই বিষয়টি জানার পর তাৎক্ষণিক প্রবাসীকে হাজির করে বকেয়া
থাকা বেতনের টাকা উদ্ধার করে দিই। এরপর পুলিশের গাড়িতে করে নিজ বাড়ি ডুলাহাজারায় পৌঁছে দিয়ে আসি।’

বেতনের বকেয়া টাকা হাতে পেয়ে চোখের পানি গড়িয়ে পড়ছিল বৃদ্ধ আবু শামার। এ সময় তিনি টাকাগুলো পেয়ে দুই হাত তুলে পুলিশের জন্য তথা থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমানের জন্য প্রাণভরে দোয়া করেন।

বৃদ্ধ আবু শামা বলেন, ‘এই টাকা যদি আমি না পেতাম, তাহলে আমার এবং পরিবারের বড় ধরণের ক্ষতি হয়ে যেত। পাশাপাশি বড় ধরণের মিথ্যা অপবাদ নিয়ে আমাকে মরতে হতো। আজ মানবতাবাদী পুলিশ আছে বলেই আমি ন্যায়বিচার পেয়েছি।’

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019-2020 | কক্সবাজার ক্রাইম নিউজ
Theme Customized By Shah Mohammad Robel