বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৪৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
বুধবার থেকে গণপরিবহনে ভাড়া ৬০ শতাংশ কার্যকর মহেশখালীতে ৬লাখ ২২ হাজার ইয়াবা উদ্ধার উখিয়া-টেকনাফ থেকে ৬ষ্ঠ দফায় ভাসানচরের পথে ২৪৯৫ জন রোহিঙ্গা পেকুয়ায় পানিতে ডুবে রোজাদার যুবকের মৃত্যু চকরিয়া পৌরসভা নির্বাচন: মেয়র প্রার্থী জিয়াবুলের পথসভায় মানুষের ঢল রামুর কচ্ছপিয়ায় যুবলীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হেফাজতের হরতাল ঠেকাতে নেতাকর্মীদের নিয়ে দিনভর মাঠে এমপি জাফর আলম উগ্র মৌলবাদীদের রাস্তায় নামিয়ে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা থামানো যাবে না: মেয়র মুজিব রোহিঙ্গাদের ভোটার করায় কক্সবাজারে ৩ কাউন্সিলর গ্রেফতার চকরিয়া পৌর ভোট: মেয়র প্রার্থী জিয়াবুলের ‘জনতার ইশতেহার’ কমসূচি শহরজুড়ে প্রশংসা

পেকুয়ায় গ্রামপুলিশ সদস্যকে ছুরিকাঘাত

সিসিএন
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৭ জুলাই, ২০২০
  • ৬৯ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

পেকুয়ায় আবু ছালেক (২০) নামের গ্রামপুলিশের এক সদস্যকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। সোমবার (৬জুলাই) সকাল ১১টার দিকে উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের ঘাট মাঝির পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহতাবস্থায় ওই গ্রামপুলিশ সদস্যকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন।

আহত গ্রামপুলিশ সদস্য আবু ছালেক একই ইউনিয়নের মরিচ্যাদিয়া এলাকার কাইছার উদ্দিনের ছেলে ও মগনামা ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত গ্রামপুলিশ সদস্য।

আহত গ্রামপুলিশ সদস্য আবু ছালেক বলেন, মগনামা লঞ্চঘাট এলাকার ফিশারি ব্যবসায়ী ছরওয়ার বাদি হয়ে ঘাট মাঝির পাড়া আবুল শামা ও তার ছেলে রবিউল আলমের বিরুদ্ধে ইউনিয়ন পরিষদে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। সে অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে অভিযুক্তদের ডেকে আনতে আমি তাদের বাড়িতে যাই। অভিযোগের কথা শুনেই আবুল শামাসহ তার পরিবারের সদস্যরা আমাকে মারধর শুরু করে। এসময় আবুল শামা ধারালো ছুরি দিয়ে আমাকে আঘাত করে।

মগনামা ইউনিয়ন পরিষদের দফাদার আলমগীর বলেন, আবু ছালেককে ছুরিকাঘাত করার খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে যাই। স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় আমরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করাই।

তিনি আরো বলেন, আহত সহকর্মীকে উদ্ধার করতে গেলে হামলাকারী আবুল শামা গং আমাদের উপরও হামলার চেষ্টা চালায়। কিন্তু স্থানীয়দের সহযোগিতায় আমরা সেখান থেকে নিরাপদে ফিরে আসি।

মগনামা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম বলেন, ব্যবসায়ী সরওয়ার আলম বাদি হয়ে ইউপি কার্যালয়ে টাকা চুরির একটি অভিযোগ দেয়। ঘটনাটি আমি সুরাহা করতে চাইলে বিবাদী রবিউল আলম ও তার পিতা আবুল শামা দুইদিনের সময় নিয়ে গাঢাকা দেয়। দশ দিন পর বাদি সরওয়ার জানান বিবাদী রবিউল আলম ফিরেছে।

এরপর আমার ইউপির গ্রাম পুলিশ সদস্য আবু ছালেককে পাঠিয়ে বিবাদীদের ইউপি কার্যালয়ে হাজির হওয়ার খবর দেই। কিন্তু গ্রামপুলিশ সদস্য আবু ছালেক তাদের বাড়িতে গেলে তার উপর হামলা চালানো হয়। এ ঘটনায়  মগনামা ইউপি কার্যালয়ের পক্ষ থেকে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019-2020 | কক্সবাজার ক্রাইম নিউজ
Theme Customized By Shah Mohammad Robel