শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০৪:৩৭ পূর্বাহ্ন

টেকনাফে জমি দখলের পায়তারা : প্রান নাশের হুমকি !

সিসিএন
  • আপডেট সময় বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০২০
  • ৫৬ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক। 

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার গোদারবিল বায়তুশ শরফ মাদ্রাসা সংলগ্ন রাস্তার উত্তর পাঁশে  ২০ শতক বসত বাড়ির জমি দখলের পায়তারা করছে একদল সঙ্গবদ্ধ ভূমিদস্যু। প্রকাশ্যে প্রান নাশের হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে জমির মালিক।

এ লক্ষে ২৫ আগস্ট (মঙ্গলবার) বিকালে ভূমিদস্যুদল তাদের দলবল নিয়ে দেশীয় তৈরি অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে উক্ত বসত বাড়ির জমিতে অনধিকার প্রবেশ করে বাইরে এবং ভিতরে লাগানো সাইনবোর্ড মুছে ফেলে বলে অভিযোগ করেন জমির মালিক সাবরাং ইউনিয়নের কাটাবনিয়া গ্রামের মৃত আবদুর রশীদের ছেলে ইসলামিয়া এমদাদুল উলুম মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মৌলভী মনির আহমেদ।

তিনি জানান,  ২১ বছর আগে বি.এস রেকর্ডের মালিক আবদুর রহীমের কাজ থেকে ২০ শতক জমি কিনে জমির চারপাশে বাউন্ডারি দিয়ে ভোগ দখল করে আসছি। বসত বাড়ি স্থাপনের লক্ষে উক্ত জমিতে বিভিন্ন প্রজাতির গাছপালা রোপন করে সবুজায়নের কাজ ও চলছে। তাছাড়া এ জমিটি বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক টেকনাফ শাখার নিকট তারিখ দায়বদ্ধ আছে।

এর মধ্যে আমার মালিকানাধীন জমিটি আমার কাজ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে অন্যত্র বিক্রির পায়তারা করছে ডেইল পাড়ার মৃত আবদুল নবীর ছেলে আবদুল গফুর সহ একদল চিহ্নিত ভূমিদস্যু।

জানা যায়, আবদুল গফুরের ছেলে মোহাম্মদ শফিক একজন চিহ্নিত ইয়াবা কারবারি। ইয়াবা ব্যবসার বদৌলতে অঢেল সম্পত্তির মালিক মোহাম্মদ শফিক এলাকায় গড়ে তুলেছেন এক বিশাল সিন্ডিকেট। এ সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সারাদেশে ইয়াবা পাচার , জমি দখলসহ নানা অপরাধ মুলক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে। মাদকের বিরুদ্ধে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাঁড়াশী অভিযান শুরু হলে মোহাম্মদ শফিক আত্মগোপন চলে যায়। আত্মগোপনে থেকেও এ সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সে তার ব্যবসা চালিয়ে আসছে এমনি অভিযোগ এলাকাবাসীর।

৩১ জুলাই রাতে মেজর (অবসরপ্রাপ্ত) সিনহাঁ মোঃ রাশেদ খান বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়িতে নিহত হওয়ার পর মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান থমকে যায়। এ সুযোগে চিহ্নিত ইয়াবা কারবারি মোহাম্মদ শফিক আত্মগোপন থেকে প্রকাশ্যে চলে আসে।

মোহাম্মদ শফিকের আগে থেকে নজর ছিল মৌলভী মনির আহমেদের মালিকানাধীন ২০ শতক জমিটির উপর। এবার তার পিতাকে দিয়ে সে জমিটি দখলের পায়তারা করে আসছে বলে জানান মৌলভী মনির আহমেদ। এ ব্যাপারে আজ ২৬ আগস্ট (বুধবার) টেকনাফ মডেল থানায় তিনি একটি সাধারণ ডায়েরী করেন।  যার নং-৮৮৪।

ইতিমধ্যে, এ ব্যাপারে  মৌলভী মনির আহমেদ টেকনাফ মডেল থানা, সিপিসি-১ কোম্পানি কমান্ডার, টেকনাফ, এবং সেনাবাহিনীর টেকনাফ ক্যাম্পের অধিনায়ক বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে আবদুল গফুরের সাথে যোগাযোগ করা হলে ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019-2020 | কক্সবাজার ক্রাইম নিউজ
Theme Customized By Shah Mohammad Robel