বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ০৬:২৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
বুধবার থেকে গণপরিবহনে ভাড়া ৬০ শতাংশ কার্যকর মহেশখালীতে ৬লাখ ২২ হাজার ইয়াবা উদ্ধার উখিয়া-টেকনাফ থেকে ৬ষ্ঠ দফায় ভাসানচরের পথে ২৪৯৫ জন রোহিঙ্গা পেকুয়ায় পানিতে ডুবে রোজাদার যুবকের মৃত্যু চকরিয়া পৌরসভা নির্বাচন: মেয়র প্রার্থী জিয়াবুলের পথসভায় মানুষের ঢল রামুর কচ্ছপিয়ায় যুবলীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হেফাজতের হরতাল ঠেকাতে নেতাকর্মীদের নিয়ে দিনভর মাঠে এমপি জাফর আলম উগ্র মৌলবাদীদের রাস্তায় নামিয়ে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা থামানো যাবে না: মেয়র মুজিব রোহিঙ্গাদের ভোটার করায় কক্সবাজারে ৩ কাউন্সিলর গ্রেফতার চকরিয়া পৌর ভোট: মেয়র প্রার্থী জিয়াবুলের ‘জনতার ইশতেহার’ কমসূচি শহরজুড়ে প্রশংসা

সিফাতকে নিয়ে এসবি রিপোর্টে যা ছিল

সিসিএন
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০
  • ৪৫ বার পঠিত

আটকের দশদিন পর মুক্তি পেলেন পুলিশের গুলিতে নিহত অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহার সহকর্মী সাহেদুল ইসলাম সিফাত। মেজর (অব.) সিনহা নিহতের পর পুলিশের করা মামলায় কারাগারে পাঠানো হয় সিফাতকে। অথচ তাকে নির্দোষ ছেলে হিসেবে উল্লেখ করে পুলিশের বিশেষ শাখা থেকে চিঠি দেয়া হয়েছিল। তবে সেটি আমলে নেয়নি কক্সবাজার পুলিশ। বরগুনা এসবি পুলিশ থেকে পাঠানো সেই নথি এসেছে ।

জানা গেছে, সিফাতকে আটকের পরদিনই বরগুনার বামনার গ্রামের বাড়িতে যায় স্থানীয় পুলিশ। খোঁজখবর নিয়ে, ২ আগস্ট বরগুনা জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার পাঠানো চিঠিতে জানানো হয় মাসখানেক আগে সিফাতের গ্রামের বাড়ি গিয়েছিলেন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদ।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, এলাকার লোকজনের নিকট গোপন ও প্রকাশ্য জিজ্ঞাসাবাদে বামনা থানা এলাকায় সাহেদুল ইসলাম সিফাত অবস্থানকালীন তার স্বভাব চরিত্র ভালো ছিল বলে জানা যায়। বামনা থানা ও বরগুনা জেলা বিশেষ শাখার রেকর্ডপত্র ও সিডিএমএস পর্যালোচনা করে তার বিরুদ্ধে কোনোরূপ তথ্য পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, পরিবারের অনুমতি নিয়েই কক্সবাজারে তথ্যচিত্র নির্মাণের কাজে সিফাতকে নিয়ে যান সিনহা। সাহেদুল সিফাত ও রোববার মুক্তি পাওয়া সিনহার আরেক সহকর্মী শিপ্রা দেবনাথ এখন পরিবার’সহ তদন্তকারী সংস্থার হেফাজতে আছেন। মানসিক অবস্থার একটু উন্নতি হবার পর আদালতে তাদের জবানবন্দি নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019-2020 | কক্সবাজার ক্রাইম নিউজ
Theme Customized By Shah Mohammad Robel