মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:১৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম

কোনো শিশুকে ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নিয়োগ না দেয়ার তাগিদ

সিসিএন
  • আপডেট সময় বুধবার, ২১ অক্টোবর, ২০২০
  • ১০ বার পঠিত

কক্সবাজার জেলা শিশুশ্রম পরিবীক্ষণ কমিটির সভায় দরিদ্র, অসহায় এবং বস্তিবাসী শিশুরা যাতে কোন অপরাধ কর্মকান্ডে লিপ্ত না হয়-সেদিকে খেয়াল রাখতে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। সভায় কোনো শিশুকে ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নিয়োগ না করারও তাগিদ দেয়া হয়। এসময় শতভাগ শিশুকে বিদ্যালয়মুখী করতে নানা উদ্যোগের কথা বলা হয়।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে উইনরক ইন্টারন্যাশনাল নামের বেসরকারি সংগঠনের সহযোগীতায় ক্লাইম্ব প্রকল্পের আওতায় এ্যালায়েন্স ফর কোঅপারেশন এন্ড লিগ্যাল এইড বাংলাদেশ (একলাব) এর বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় এ সভার আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন।

শুরুতে চট্টগ্রাম বিভাগীয় শ্রমদপ্তরের সহকারী পরিচালক ও জেলা শিশুশ্রম পরিবীক্ষণ কমিটির সদস্য সচিব মোঃ শফিকুর রহমান শহরের নাজিরারটেকসহ কয়েকটি শুঁটকি পল্লীতে শিশুশ্রমের চিত্র ও শিশুশ্রম নিরসনে তাঁর দপ্তরের গৃহীত কার্যক্রম তুলে ধরেন।

এসময় উইনরক ইন্টারন্যাশনালের প্রতিনিধি তানভীর শরীফ কক্সবাজারের শুঁটকি সেক্টরে শিশুশ্রম প্ররিস্থিতি নিয়ে একটি জরিপের তথ্য তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, মোট শুঁটকি খামার ৫৬১ টি, যার মধ্যে ৯৩ শতাংশ নাজিরারটে। ১৪৩৬৬ জন শ্রমিকের ৬৩ শতাংশ নারী ও ১৭ শতাংশ পুরুষ। ২০ শতাংশ শিশুদের মধ্যে ২০৮০ মেয়েশিশু ও ৭৯৬ জন ছেলেশিশু এবং কর্মরত এসব শিশুদের মাত্র ২৫ শতাংশ  অধায়নরত আছে বলে উল্লেখ করেন। তারা সপ্তাহে ৪৮ ঘন্টার উপরে কাজ করার কথাও জানান। ঝুঁকিপুর্ণ কাজের মধ্যে এরা সার্বক্ষণিক রোদের মধ্যে দাড়িয়ে থাকে, ২৫ শতাংশ হাত মৌজা, ৬ শতাংশ মাস্ক, ৫৩ শতাংশ ধারালো অস্ত্র ব্যবহার করে। দীর্ঘ সময় পানির উপর দাড়িয়ে কাজ করে ৪৪ শতাংশ, বাশের স্থাপনার উপরে কাজ করে ৩২ শতাংশ,  বিভিন্ন ক্ষতিকর দ্রব্যের সংস্পর্শে ৩১ ও ৮৬ শতাংশ ভারী মালামাল বহন করার তথ্য তিনি তুলে ধরেন।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা, কক্সবাজার জেলার স্থানীয় সরকার এর উপপরিচালক শ্রাবস্তী রায়, জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ এম ফখরুল হোসাইন, জেলা শিক্ষা অফিসের সহকারী পরিদর্শক মোহাম্মদ বশির উদ্দিন, জেলা গোয়েন্দা শাখার পুলিশ পরিদর্শক শেখ মোহাম্মদ আলী, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আসাদুজ্জামান চৌধুরী, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর সহকারী পরিচালক সুমেন মন্ডল, চট্টগ্রাম কলকারখানা ও প্রতিষ্টান পরিদর্শন অধিদপ্তরের সহকারী মহা পরিদর্শক শিপন চৌধুরী, উইনরক ইন্টারন্যাশনাল এর (সিএলআইএমবি)র প্রজেক্ট ডিরেক্টর জামান খান, জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক সুব্রত বিশ্বাস, একলাব এর প্রতিনিধি রাশেদুল হাসান রাশেদ, টি এ অফিসার মোশারফ হোসেন, ক্লাইম্ব প্রকল্পের অর্থ ও প্রশিক্ষণ অফিসার মোঃ রিয়াজ উদ্দিন ও ইফসার প্রতিনিধি বিশ্বজিৎ ভৌমিক প্রমুখ ছাড়াও এ সময় বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, এনজিও ফোরামের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, অভাবের তাড়নায় অনেক দরিদ্র বাবা-মা শিশুদেরকে কাজে পাঠাতে বাধ্য হচ্ছে। আর্থসামাজিক বাস্তবতার কারণে সরকার শিশুশ্রমকে একেবারে বন্ধ কিংবা নিষিদ্ধ করছে না। তবে, সরকার আপাতত এটুকু নিশ্চিত করতে চাইছে যে, কোনো শিশুকেই যেন ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নিয়োগ না দেওয়া হয়। দরিদ্র, অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা বিশেষ করে বস্তির শিশুরা যাতে কোন অপরাধকর্মে লিপ্ত না হয়-সেই বিষয়ে নজর দিতে জেলা প্রশাসক সকলকে অনুরোধ করেন। তিনি আরও বলেন, জেলা শিশুশ্রম পরিবীক্ষণ কমিটিকে শিশুশ্রম নিরসন সংক্রান্ত কার্যক্রম মনিটরিং করতে হবে।

তিনি, যেসব এনজিও গুলো শিশুশ্রম নিয়ে কাজ করে তারা প্রতিটি উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের সাথে সমন্বয় করে এইসব শুঁটকি পল্লীতে কর্মরত শিশুদের তালিকা তৈরীর নির্দেশ দেন এবং শিশুশ্রম পরিবীক্ষণ কমিটি শিশুশ্রম নিরসনে কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019-2020 | কক্সবাজার ক্রাইম নিউজ
Theme Customized By Shah Mohammad Robel