উখিয়ায় বিশেষায়িত হাসপাতাল পরিচালনায় ত্রিপক্ষীয় চুক্তি

উখিয়ায় স্থাপিত বিশেষায়িত হাসপাতাল এ সেবাদান ও পরিচালনা সংক্রান্ত এক ত্রিপক্ষীয় সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশন (ইউএনএইচসিআর) এর মধ্যে ত্রিপক্ষীয় এ সমঝোতা স্মারক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।
সমঝোতা স্মারকে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের পক্ষে সচিব ড. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষে সচিব মো. কামরুল হাসান এবং ইউএনএইচসিআরের পক্ষে বাংলাদেশের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ জোহানেস ভেন ডের ক্লাউ স্বাক্ষর করেন। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহা পরিচালক আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার শাহ্ রেজওয়ান হায়াতসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
ইউএনএইচসিআরের অর্থায়নে উখিয়ার টিএন্ডটি গুচ্ছগ্রাম এলাকায় স্থাপিত বিশেষায়িত এ হাসপাতালে মাধ্যমিক ও গুরুতর রোগীদের চিকিৎসা প্রদান করা বলে জানা গেছে। এতে বাংলাদেশী স্হানীয় লোকজন ও আশ্রিত রোহিঙ্গারা স্বাস্থ্য সেবা পাবে বলে ইউএনএইচসিআর-এর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

এ হাসপাতালে সার্জারি, ট্রমা কেয়ার, চক্ষু, দন্ত ও ফিজিওথেরাপি উপশমকারী সব ধরনের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে জানানো হয়েছে। এছাড়াও সপ্তাহের ২৪/৭ দিন জরুরী ইউনিট, অত্যাধুনিক ল্যাবরেটরি ও ডায়াগনস্টিক সুবিধা রয়েছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে হাসপাতালের প্রশাসনিক ও চিকিৎসা সেবা প্রদানে ভূমিকা রাখবে স্বাস্থ্য বিভাগ, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র, রিলিফ ইন্টারন্যাশনাল ও অরবিস।
বর্তমান হাসপাতালস্হলে ২০১৭ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর বলপূর্বক ব্যস্তুচ্যুত মিয়ানমার নাগরিক ও স্থানীয় জনগণের চিকিৎসার জন্য মালয়েশিয়ান সরকার মালেশিয়ান ফিল্ড হাসপাতাল চালু করে। করোনার কারণে মালেয়েশিয়ার পক্ষে এ হাসপাতালে সেবা প্রদান ব্যাহত হয় এবং তারা ২০২১ সালের ১৪ মার্চ এ হাসপাতাল পরিচালনায় অপারগতা প্রকাশ করে চলে যান বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.