কক্সবাজারকে পর্যটকবান্ধব করতে ট্যুরিস্ট পুলিশের মাস্টারপ্ল্যান

কক্সবাজারকে পর্যটকবান্ধব করতে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করেছে ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়ন। পর্যটকরা কক্সবাজারে এসে যাতে কোনো হয়রানি ছাড়াই আবার নিরাপদে বাড়ি ফিরতে পারেন সে লক্ষ্যে পর্যটন সংশ্লিষ্ট সব খাতকে ট্যুরিস্ট পুলিশের মাস্টারপ্ল্যানের আওতায় আনা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের কনফারেন্স হলে লাইফগার্ডদের মাঝে ফোল্ডেবল স্ট্রেচার বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব পরিকল্পনার কথা জানানো হয়।

পরিকল্পনাগুলো হচ্ছে- পর্যটন সম্পর্কিত সকল সেবা একই ওয়েব পোর্টালে প্রকাশ। অটোরিকশা-সিএনজি চালকদের আলাদা পোশাক, আইডি কার্ড ও ভাড়া নির্ধারণ। হোটেল মোটেল জোনে স্থানীয় কিশোরদের প্রবেশ সীমিত করা। পর্যটন সম্পর্কিত সকল স্টক হোল্ডারদের আইডি কার্ড ব্যবহার নিশ্চিত করা। বাসসহ সকল পরিবহনে পর্যটক সচেতনতায় স্টিকার লাগানো। সকল স্টক হোল্ডারদের ডাটাবেজের আওতায় আনা। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কিশোর গ্যাং ও ছিনতাই চক্রের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা। বিচে হারানো ও দলছুট শিশু পরিচর্যা কেন্দ্র স্থাপন এবং ব্রেস্ট ফিডিং সেন্টার স্থাপন।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান বলেন, পর্যটনের উন্নয়নে সবার পজিটিভ মানসিকতা লালন করা উচিত। পর্যটনের ক্ষতি মানে সবার ক্ষতি। ট্যুরিস্ট পুলিশ ও ট্যুরিজম খাতে জড়িত সবার সঙ্গে সমন্বয় রেখে আমরা কাজ করছি।

তিনি বলেন, ট্যুরিস্ট পুলিশ বাংলাদেশ পুলিশের একটি ইউনিট। ট্যুরিস্ট পুলিশের সকল সদস্য বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক নিয়োগকৃত। বাংলাদেশ পুলিশ যে সকল কাজ করে, ট্যুরিস্ট পুলিশ সদস্যরাও সেসকল কাজ করতে পারবে। কেউ অপরাধ করে পার পাবে না। পর্যটন এলাকায় নিয়মিত তৎপরতার পাশাপাশি অবাধে গরু বিচরণের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু তাহের চৌধুরী বলেন, পর্যটন বাদ দিয়ে কোনো কিছুই না। নেতিবাচক প্রভাব পড়ে এমন এমন সংবাদ করা যাবে না। হোটেল কর্মকর্তা, টমটম চালক, কিটকট ব্যবসায়ীসহ পর্যটন সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণের আওতায় আনতে হবে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজাউল করিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. মুজিবুল ইসলাম, প্রথম আলোর কক্সবাজার অফিস প্রধান আবদুল কুদ্দুস রানা, সহকারী পুলিশ সুপার মো. মীজানুজ্জামান, ইন্সপেক্টর গাজি মিজানুর রহমান, চ্যানেল আই’র কক্সবাজার প্রতিনিধি সরওয়ার আজম মানিক, সি সেফ লাইফগার্ডের ফিল্ড টিম ম্যানেজার ইমতিয়াজ আহমেদ, কলাতলী-মেরিন ড্রাইভ সড়ক হোটেল রিসোর্ট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুকিম খান প্রমুখ।

এর আগে অনুষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে ট্যুরিস্ট পুলিশের কর্মতৎপরতার বিস্তারিত তুলে ধরেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজাউল করিম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.