কোটি টাকার আইস চট্টগ্রামে আসছিল টেকনাফ থেকে, উখিয়ায় মাটির নিচে ৩ কোটি টাকার ইয়াবা

টেকনাফ থেকে ১ কোটি টাকার ক্রিস্টাল আইসের একটি চালান চট্টগ্রামে আনার প্রস্তুতি নিচ্ছিল মাদক কারবারীরা। কিন্তু খবর পেয়ে তাদের পরিকল্পনা ভেস্তে দিল র‌্যাব। এছাড়া উখিয়ায় একটি বাড়িতে মাটির নিচে মিলেছে ৩ কোটি টাকার ইয়াবা। রাঙামাটিতে বিক্রির জন্য শুকানো হচ্ছিল সোয়া ৮ কোটি টাকার গাঁজা। খবর পেয়ে ইয়াবা উদ্ধার ও গাঁজাখেত ধ্বংস করে র‌্যাব-৭।

রোববার (১৪ নভেম্বর) পৃথক তিনটি অভিযানে তাদের আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ৩ কোটি টাকা মূল্যের ১ লাখ পিস ইয়াবা, ১ কোটি টাকা মূল্যের ৯৯৫ গ্রাম আইস (ক্রিস্টাল মেথ) জব্দ করা হয়। এছাড়া একই সময়ে ৮ কোটি ২৫ লাখ টাকা মূল্যের ৫ হাজার ৫০০ কেজি গাঁজাখেত ধ্বংস করা হয়।

র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানার সাবরাং এলাকায় এক মাদক কারবারি আইস (ক্রিস্টাল মেথ) মাদক নিয়ে চট্টগ্রামে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযানে পরিচালনা করা হয়। এ সময় জড়িত একজনকে আটক করে র‌্যাব। তার দেহ তল্লাশি করে একটি শপিং ব্যাগ থেকে ৯৯৫ গ্রাম আইস (ক্রিস্টাল মেথ) এবং ২৮০ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়।

এছাড়া কক্সবাজার জেলার উখিয়া বালুখালী এলাকায় বাড়ির উঠানে মাটির নিচের বিপুল পরিমাণ ইয়াবা মজুদ করে রাখা হয়েছে—এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় দুইজনকে আটক করে র‌্যাব। পরে মাটির নিচে তল্লাশি চালিয়ে শক্ত প্লাস্টিকে মোড়ানো অবস্থায় ১ লাখ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়।

অন্যদিকে, রাঙামাটি জেলার কাউখালী থানার যেবাছড়ি এলাকায় বিপুল পরিমাণ গাঁজা ক্ষেত তুলে শুকিয়ে বাজারজাত করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে—এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। পরে ওই চাষকৃত জমি থেকে ৫ হাজার ৫০০ কেজি গাঁজা ধ্বংস করে র‌্যাব। এসময় জড়িত একজনকে আটক করা হয়।

অভিযানে আটকরা হলেন- উখিয়ার বালুখালী এলাকার আহমদ করিমের ছেলে মো. হামিদ হোসেন (৩২), একই এলাকার মৃত মো. ছিদ্দিকের ছেলে নাজমুল ইসলাম (৩৫), রাঙামাটি জেলার কাউখলী থানার যেবাছড়ি এলাকার রেদু কুমার চাকমার ছেলে জ্যোতিমান চাকমা (৩৬), টেকনাফ থানার শাহ্পরিদ্বীপ এলাকার মৃত ওমর আব্বাসের ছেলে মো. ছাবের (৪১)।

র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নূরুল আবছার জানান, কক্সবাজার জেলার উখিয়া বালুখালী ও টেকনাফ থানার সাবরাং এবং রাঙামাটি জেলার যেবাছড়িতে পৃথক তিনটি অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে ১২ কোটি ২৫ লাখ টাকা মূল্যের বিপুল পরিমাণ ইয়াবা, আইস (ক্রিস্টাল মেথ) ও গাঁজা জব্দ করা হয়। টেকনাফ থেকে আইস (ক্রিস্টাল মেথ) চট্টগ্রামে নিয়ে আসা হচ্ছিল।

তিনি বলেন, তারা দীর্ঘদিন ধরে পাইকারি দামে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে এবং চাষ করে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পাচার করে আসছিলেন। পরে তাদের সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.