জালিয়াতি চক্রের মাধ্যমে এনআইডি নেন আরসা নেতার ভাই

আরাকান স্যালভেশন আর্মির (আরসা) প্রধান আতাউল্লাহর ভাই ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে জালিয়াতি চক্রের মাধ্যমে এনআইডি নেন বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কর্মকর্তারা। তারা জানান,আতাউল্লাহর ভাই শাহ আলী ২০১৮ সালে বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহ করেছিলেন। ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে ইসির সার্ভারে তার নাম তুলে দেয়া হয়েছিল।

চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান গতকাল গণমাধ্যমকে জানান, শাহ আলীর আবেদনপত্রে তেমন কিছুই নেই। ভোটার হতে হলে অনেকগুলো প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হয়। এনআইডিটি ত্রুটিপূর্ণ হওয়ায় তখন থেকেই তা অকার্যকর আছে।

এ বিষয়ে উখিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সালাউদ্দিন জানান, শাহ আলী কীভাবে এনআইডি নিয়েছেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

এদিকে শাহ আলী চট্টগ্রাম নগরের দেওয়ান বাজারের জয়নাব কলোনির স্থায়ী বাসিন্দা বলে পরিচয় দিলেও তাকে সেখানকার বাসিন্দারা চেনেন না।

জানা গেছে, ইসির এনআইডি সার্ভারে শাহ আলীর যে নিবন্ধন ফরমটি (ফরম-২) ব্যবহার করা হয়েছে, তা কেবল এক পৃষ্ঠার। সাধারণত নিবন্ধন ফরম দুই পৃষ্ঠার হয়। এখানে ফরমের দ্বিতীয় পৃষ্ঠাটি নেই। ওই পৃষ্ঠায় তথ্য সংগ্রহকারী, শনাক্তকারী ও যাচাইকারীর নাম ও এনআইডি নম্বর থাকে।

ইসি সূত্র জানায়, ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে লাকী নামের এক নারী স্মার্ট কার্ড তুলতে গেলে বেরিয়ে আসে এনআইডি জালিয়াতির বিষয়টি। কমিশনের হারিয়ে যাওয়া ল্যাপটপ ব্যবহার করে চক্রটি রোহিঙ্গা এবং অন্যদের ভোটার করত বলে তদন্তে উঠে এসেছে।

গত রোববার শাহ আলীকে অস্ত্র, মাদকসহ গ্রেপ্তারের পর উখিয়া থানায় করা পুলিশের মামলার এজাহারে তার কাছ থেকে বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্র পাওয়া কথা উল্লেখ করা হয়। এর আগে শাহ আলীকে উখিয়ার কুতুপালং ৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নৌকার মাঠ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.