টেকনাফে আইস ও ইয়াবা উদ্ধার, আটক ১

কক্সবাজারের টেকনাফে পৃথক অভিযান চালিয়ে এক কেজি ৬০ গ্রাম ক্রিস্টাল মেথ আইস ও ৫০ হাজার ইয়াবাসহ এক পাচারকারিকে আটক করেছে বিজিবি।

বিজিবির টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্ণেল শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় নাফ নদীর টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনচিপ্রাং এবং রাতে হ্নীলা ইউনিয়নের ওয়াব্রাং এলাকায় এ অভিযান চালানে হয়।
আটক মো. ফারুক (৩০) টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনচিপ্রাং এলাকার নুর আহমেদ এর ছেলে।
বিজিবি জানিয়েছে, এতে এক অভিযানে ৩০ হাজার ইয়াবা ও একটি কাঠের নৌকাসহ এক পাচারকারি আটক করা হয়। পরে আটক ব্যক্তির স্বীকারোক্তি মতে, অপর অভিযানে এক কেজি ক্রিস্টাল মেথ আইস ও ২০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

শেখ খালিদ বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যায় নাফ নদীর টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের আন নূর মৎস্য ঘের এলাকা দিয়ে মাদকের একটি চালান পাচারের খবরে বিজিবির একটি দল অভিযান চালায়। এক পর্যায়ে মিয়ানমার দিক থেকে হস্তচালিত নৌকা যোগে এক ব্যক্তিকে নাফ নদীর জলসীমার শূণ্যরেখা অতিক্রম করতে দেখে বিজিবির সদস্যরা থামার জন্য নির্দেশ দেন। এতে লোকটি নৌকা থেকে নদীতে লাফ দিয়ে পালানোর চেষ্টাকালে বিজিবির সদস্যরা ধাওয়া আটক করতে সক্ষম হয়।
” পরে নৌকাটি তল্লাশী চালিয়ে পাটাতনের ভিতরে বিশেষ কৌশলে লুকিয়ে রাখা অবস্থায় ৩০ হাজার ইয়াবা পাওয়া যায়। এসময় জিজ্ঞাসাবাদে আটক ব্যক্তি আরও মাদকের চালান মজুদ থাকার তথ্য দেয়। ”
পরে আটক ব্যক্তির দেয়া তথ্যে, রাতে নাফ নদীর হ্নীলা ইউনিয়নের ওয়াব্রাং এলাকায় অভিযান বিজিবির অপর একটি দল অভিযান চালায় বলে জানান বিজিবির এ কর্মকর্তা।
শেখ খালিদ বলেন, ” অভিযানে তল্লাশী চালিয়ে বিজিবির সদস্যরা বেঁড়ীবাধের মাটির নিচে লুকিয়ে রাখা অবস্থায় এক কেজি ৬০ গ্রাম ক্রিস্টাল মেথ আইস এবং ২০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করেছেন। এসময় মাদকের চালান মজুদে জড়িতরা পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। ”
উদ্ধার করা মাদকগুলোর আনুমানিক মূল্য ৬ কোটি ৮০ লাখ ২০ হাজার টাকা বলে জানান তিনি।
শেখ খালিদ জানান, আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে টেকনাফ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.