দুদকের মামলায় কারাগারে টেকনাফের শাহ আলম

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের দায়ের করা মামলায় শাহ আলম নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত। গত মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারী) চট্টগ্রাম মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ ড. বেগম জেবুন্নেসার আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। শাহ আলম কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার পুরান পল্লান পাড়া গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে। দুদকের মামলা ছাড়াও তার বিরুদ্ধে কক্সবাজারের বিভিন্ন থানায় মাদক ও মারামারির চারটি মামলা রয়েছে।

আদালত সূত্র জানায়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ীর অন্যতম শাহ আলমের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার মাধ্যমে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ এনে ২০১৯ সালের ২৭ অক্টোবর মামলা করে দুদক। মামলার তদন্তে জ্ঞাতআয়বহির্ভূত ৪১ লাখ ২৮ হাজার ৮২৯ টাকার সম্পদ অর্জনের অভিযোগের সত্যতা পেয়ে কমিশনের অনুমোদন নিয়ে গত ৫ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের সহকারী পরিচালক মো. রিয়াজ উদ্দিন। আদালত অভিযোগপত্র গ্রহণ করে একমাত্র আসামি শাহ আলমের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

দুদক’র আইনজীবী কাজী ছানোয়ার আহমেদ লাভলু বলেন, জ্ঞাত আয়বহির্ভূত ৪১ লাখ টাকার বেশি সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের মামলায় সম্প্রতি তদন্ত কর্মকর্তা আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছেন। মঙ্গলবার মামলার একমাত্র আসামি শাহ আলম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। আদালত তার আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য শাহ আলম ২০১৯ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারী টেকনাফে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি”র উপস্থিতিতে ১০২ আত্মসমর্পণকারী মাদক কারবারির একজন।

Leave a Reply