বাংলাদেশের আইকনিক সিটি হবে কক্সবাজার

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান কমোডর (অবঃ) নুরুল আবছার বলেছেন, পর্যটনের পাশাপাশি ভৌগলিকভাবেই কক্সবাজার বিশ্বের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্থান। পর্যটনের পাশাপাশি ভূ-রাজনীতির জন্য কক্সবাজারের গুরুত্ব অনেক বেড়ে গেছে। কক্সবাজারকে এগিয়ে নিতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান নিযুক্ত হয়ে রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) সকালে কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছালে কমোডর নুরুল আবছারকে সর্বস্তরের নাগরিকদের পক্ষে সংবর্ধনা দেওয়ার সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

পরিবেশ-প্রতিবেশ রক্ষা করেই উন্নয়ন হবে বলে জানিয়ে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান কমোডর নুরুল আবছার বলেন, বাংলাদেশের আইকনিক সিটি হবে কক্সবাজার। কক্সবাজারকে আইকনিক সিটিতে রূপান্তরের জন্য আমি কাজ করব। প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা কক্সবাজারের উন্নয়নের জন্য খুবই আন্তরিক। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার হাত ধরেই কক্সবাজারের উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় সবাইকে সঙ্গে নিয়ে অংশীদার হতে চাই।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নবনিযুক্ত কউক চেয়ারম্যান বলেন, কক্সবাজার শহরের মানুষের ভোগান্তি কমাতে প্রধান সড়কের কাজ দ্রুত শেষ করতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। কক্সবাজার শহরকে আইকনিক করতে সবার সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করছি।

এর আগে কউকের নবনিযুক্ত চেয়ারম্যানের আগমনের খবরে সকাল ১০টা থেকে সর্বস্তরের হাজারো মানুষ কক্সবাজার বিমানবন্দরে জড়ো হয়। স্বতঃস্ফূর্ত জনতা শুভেচ্ছা স্লোগান আর ফুল দিয়ে নতুন কউক চেয়ারম্যানকে বরণ করে নেন।

এসময় কউকের সচিব আবু জাফর মো. রাশেদ, প্রকল্প পরিচালক লে. কর্নেল খিজির আহমদ, কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. মুজিবুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহমেদ বাহাদুর, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল কর, আওয়ামী লীগ নেত্রী হামিদা তাহের, আশরাফ জাহান কাজল, পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহেনা আক্তার পাখি, হলদিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমরুল কায়েস চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা স্বপন শর্মা রনি, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) কক্সবাজারের সাংগঠনিক সম্পাদক এইচএম নজরুল ইসলাম, রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজারের সাধারণ সম্পাদক ওসমান গণি ও সাংবাদিক সংসদ কক্সবাজারের সভাপতি এম.এ আজিজ রাসেলসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। এরপর গাড়ি বহরযোগে চেয়ারম্যান কমোডর নুরুল আবছারকে কউক ভবনে পৌঁছে দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.