মানুষকে বন্ধক রেখে-কিস্তিতে ইয়াবা দিতেন তারা

রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নবী হোসেন গ্রুপের পাঁচ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৪ লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবা ও অস্ত্র-গুলি উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন- আব্দুল্লাহ রাজ্জাক রাজ্জাক মাঝি, ইলিয়াছ, সাহেদ, মো. আয়াছ আজিজুল ও সাইফুল ইসলাম। এর মধ্যে রাজ্জাক মাঝি ও আজিজুল হক রোহিঙ্গা নাগরিক। অন্যরা বাংলাদেশের নাগরিক।

শনিবার (২৭ আগস্ট) দুপুরে র‍্যাব-১৫ এর কক্সবাজার সদর দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল খায়রুল ইসলাম সরকার। তিনি জানান, কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালীতে আলোচিত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নূবী হোসাইন সাধারণ মানুষকে বন্ধক ও কিস্তিতে ইয়াবা দিতেন। সময়মতো যদি টাকা আদায় করতে না পারতেন, তাহলে বন্ধক রাখা ব্যক্তিকে নির্যাতন ও হত্যা করা হত।

নবী হোসাইন সিন্ডিকেট উখিয়া-টেকনাফের ক্যাম্প এলাকাসহ ইয়াবা পাচার ও বিভিন্ন অপরাধ করতেন। এক সময় বিজিবি তাকে ধরিয়ে দিতে পুরস্কার ঘোষণা করেন। এরপর থেকে র‌্যাবের গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করা শুরু করে। পরে নবী হোসেন গ্রুপের হাতে নির্যাতিদের সঙ্গে কথা বলে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়।

সর্বশেষ মায়ানমার থেকে ইয়াবার বড় একটি চালান বাংলাদেশে প্রবেশের তথ্যের ভিত্তিতে আমরা অভিযান চালিয়ে নবী হোসেন গ্রুপের ৫ সদস্যকে গ্রেপ্তার করি। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৪ লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবা ও একটি বিদেশি একে ২২ রাইফেল, একটি বিদেশি পিস্তল, একটি এসবিবিএল এবং ১৭ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। তবে মূলহোতা নবী হোসেনকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.