রাশিয়ার সামরিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে সন্ত্রাসী হামলায় ১১ জন নিহত

রাশিয়া বলেছে, সাবেক সোভিয়েত রাষ্ট্রের দুই বন্দুকধারী শনিবার একটি সামরিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে হামলা চালিয়ে ১১ জনকে হত্যা করেছে যারা স্বেচ্ছায় ইউক্রেনে যুদ্ধে যেতে এসেছিল এবং এই হামলায় ১৫ জন আহত হয়েছে।
রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইউক্রেন সীমান্তবর্তী বেলগোরোড অঞ্চলে আগ্নেয়াস্ত্র প্রশিক্ষণের সময় এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।
রাশিয়া গত ফেব্রুয়ারির শেষে ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে। গত মাসে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন ৩ লাখ রাশিয়ানদের একত্রিত করার নির্দেশ দিয়েছেন যারা আগে বাধ্যতামূলক সামরিক বাহিনীতে যোগ দিতে সম্মত হয়েছিলেন।
‘১৫ অক্টোবর একটি সিআইএস (কমনওয়েলথ অব ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্টেট) দেশের দুই নাগরিক বেলগোরোড অঞ্চলের পশ্চিম সামরিক জেলার একটি প্রশিক্ষণ রেঞ্জে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়েছে।’ মন্ত্রণালয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থাগুলো এ কথা জানায়।
‘এর ফলে, গুরুতর আহত ১১ জন মারা যায় এবং অপর ১৫ জন বিভিন্ন আঘাতের শিকার হয়েছে এবং তাদের চিকিৎসা সুবিধায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।’
মন্ত্রণালয় জানায়, দুই হামলাকারী ‘প্রতিশোধমূলক গুলিতে নিহত হয়েছে’।
সোভিয়েত ইউনিয়নের অংশ ছিল এমন প্রজাতন্ত্রগুলো নিয়ে সিআইএস বা স্বাধীন রাষ্ট্রগুলোর কমনওয়েলথ গঠিত হয়েছিল।
২১শে সেপ্টেম্বর আংশিক সংঘবদ্ধকরণের ঘোষণার পর থেকে ২ লাখের বেশি লোককে রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনীতে নিয়োগ করা হয়েছে।
এদিকে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি শনিবার বলেছেন যে, তার সৈন্যরা পূর্বাঞ্চলীয় শহর বাখমুতের কাছে একটি ‘সবচেয়ে কঠিন’ পরিস্থিতির মুখোমুখি হচ্ছে, যেটি কয়েক সপ্তাহ ধরে রাশিয়ান সেনাবাহিনীর আক্রমণের মুখে রয়েছে।
তারা কয়েক মাস ধরে রাশিয়ার দখলে থাকা পূর্ব ও দক্ষিণে ইউক্রেন ভূখন্ড ফিরিয়ে নিচ্ছে, কিন্তু কিছু এলাকায় কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *