পালস বাংলাদেশের সহায়তায় দেশে ফিরলো রামুর ৫ যুবক

দালালের খপ্পরে পড়ে ভারতে পাচার হয়ে দীর্ঘ দিন কারাভোগের পর কক্সবাজারের ৫ যুবক দেশে ফিরেছেন। শুক্রবার (১২ আগস্ট) বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ‘পালস বাংলাদেশ সোসাইটি’ তাদের দেশে ফিরিয়ে আনে।

পাঁচ যুবক হলেন- জেলার রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের আবু তাহেরের ছেলে সোহেল রানা, মৃত রশিদ আহমদের ছেলে মো. ইসমাইল, মো. সুলতানের ছেলে আবদুল হামিদ, আলী আহমদের ছেলে শফি আলম এবং মৃত রশিদ আহমদের ছেলে নুরুল আমিন।

বন্দিদশা থেকে স্বজনদের কাছে ফেরা সোহেল রানা বলেন, ‘ভারতের কারাগারে অনেক সময় না খেয়ে থাকতে হয়েছে। একটা সময় মনে হয়েছিল, কখনো আর পরিবারের কাছে ফিরতে পারব না। কিন্তু পালস বাংলাদেশ সোসাইটির প্রচেষ্টায় পরিবারের কাছে ফিরেছি। মনে হচ্ছে, আবার যেন নতুন জীবন ফিরে পেয়েছি।’

পালস বাংলাদেশ সোসাইটির প্রধান নির্বাহী সাইফুল ইসলাম কলিম বলেন, ‘রামুর পাঁচ যুবক ভারতে পাচার হওয়ার পর থেকে তাদের সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। পরবর্তীতে পাচার হওয়া যুবকরা ভারতের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের হাতে আটক হয়ে দেশটির বিভিন্ন কারাগারে মানবেতর সময় পার করছিলেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘কয়েক বছর পূর্বে বিষয়টি জানতে পেরে পাচার হওয়া যুবকদের দেশে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেয় পালস বাংলাদেশ। দীর্ঘ দিন পরে হলেও তাদের দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.