মার্কিন ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে আরো ব্যবসা খোলার আহ্বান মোমেনের

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বাংলাদেশে চমৎকার ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ ও বৃহৎ অভ্যন্তরীণ বাজারের কথা বিবেচনা করে, মার্কিন কোম্পানিগুলোকে অধিকতর বিনিয়োগের মাধ্যমে এদেশে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাবসায়িক সুযোগের একটি অনুকুল দেশ। মার্কিন কোম্পানিগুলো এখান থেকে অনেক অর্থ উপার্জন করতে পারবে।’ মন্ত্রী শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি হোটেলে ২৮তম ইউএস ট্রেড শো উপলক্ষ্যে ‘আমেরিকান চেম্বার অব কমার্স ইন বাংলাদেশ’ আয়োজিত এক নৈশ্যভোজে একথা বলেন।
মোমেন বলেন, বাংলাদেশ সরকার প্রত্যক্ষ বৈদেশিক বিনিয়োগে (এফডিআই) সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে। কাজেই মার্কিন বিনিয়োগকারীদের জন্য এখানে এসে ব্যবসা করার সুযোগ গ্রহনের এখনই উপযুক্ত সময়।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘অর্থনৈতিক কূটনীতি’ বর্তমান বাংলাদেশ সরকারের বৈদেশিক নীতির অন্যতম প্রধান লক্ষ্য। ঢাকা সবসময়ই অর্থবহ অংশীদারিত্বে আগ্রহী এবং আমরা যুক্তরাষ্ট্রের মতো বন্ধুরাষ্ট্রগুলোর সাথে এমনভাবে কাজ করতে চাই- যাতে করে এতে আমাদের দেশের ও বৈশ্বিক উন্নয়নের লক্ষ্য অর্জনে পারস্পারিকভাবে উপকার পেতে পারি। তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশ ও বৈশ্বিক উন্নয়নের লক্ষ্য অর্জনে ইউএস ট্রেড শো এর মতো অংশীদারিত্বমূলক যোগাযোগ জরুরি। আর এই সময়টাতে ইউএস ট্রেড শো অধিকতর তাৎপর্যপূর্ণ, কারণ এখন বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র তাদের কূটনৈতিক সম্পর্কের সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করছে। মন্ত্রী বলেন, ‘আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে আয়োজনটি এই দুই বন্ধুত্বপূর্ণ দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক সম্পর্ক, বাণিজ্য ও ব্যবসার ক্ষেত্রে উদ্দীপক হয়ে থাকবে।’
ড. মোমেন মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিপুল পরিমান কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন দিয়ে বাংলাদেশকে সহায়তায় করায় মার্কিন সরকারের প্রতি তার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, ‘আপনাদের মতো (যুক্তরাষ্ট্র) বন্ধুর সহায়তায় আমরা এই মহামারিকে খুব ভালভাবে মোকাবিলা করেছি’।
এ সময় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস ও আমেরিকান চেম্বার অব কমার্স ইন বাংলাদেশ’র সভাপতি সৈয়দ এরশাদ আহমেদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *